চ্যানেল ওম টিভি

সাধু বাক্য শ্রবন করুন !

শ্রীপাদ শঙ্করাচার্য্য পরমেশ্বর ভগবান শ্ৰীকৃষ্ণ এবং ভগবদগীতার অনুগমন করতেন বলে তিনি সন্তুষ্ট ছিলেন।

শ্রীপাদ শঙ্করাচার্য্য নিজেও স্বীকার গেছেন যে কৃষ্ণ বা নারায়ণ হচ্ছেন ভগবান এবং তিনি বলেছেন পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণ নিত্যকাল জড়প্ৰকৃতির উর্ধ্বে তার চিন্ময়ধামে বিরাজ করেন। শঙ্করাচার্য্যের ইষ্টদেবতা ও আরাধ্যদেব ছিলেন গোবিন্দ দেব বা স্বয়ং গোপাল।

#তাই তিনি তাঁর শিষ্যদের সাবধান করে শ্ৰীপাদ শঙ্করাচার্য্য নিৰ্দেশ দিয়ে গেছেন,

“ ভজ গোবিন্দং , ভজ গোবিন্দং , ভজ গোবিন্দং মূঢ়মতে”।
অৰ্থাৎ মূর্খের দল ! গোবিন্দর ভজনা কর, গোবিন্দর ভজনা কর, গোবিন্দের ভজনা কর”।।

🌷শ্রীমদ্ভগবদগীতা সম্পর্কে শঙ্করাচার্য্য বলেছেন,

”সৰ্বোপনিষদো গাবো দোগ্ধা গোপালনন্দনঃ,
পাৰ্থে বৎসঃ সুধীভোক্তা দুগ্ধং গীতামৃতং মহৎ” ৷।

#অনুবাদঃ “ এই গীতোপনিষদ ভগবদগীতা সমস্ত উপনিষদের সারাতিসার এবং তা ঠিক একটি গাভীর মতো এবং রাখাল বালকরুপে প্ৰসিদ্ধ ভগবান শ্ৰীকৃষ্ণই এই গাভীকে দোহন করেছেন । অৰ্জ্জুন যেন গোবৎসের মতো এবং জ্ঞানীগুণী ও শুদ্ধ ভক্তেরাই ভগবদগীতার সেই অমৃতময় দুগ্ধ পান করে থাকেন ”। ” ( গীতা – মাহাত্ম্য ৬ )

”একং শাস্ত্ৰং দেবকীপুত্ৰগীত একো দেবো দেবীপুত্ৰ এব,
একো মন্ত্ৰস্তস্য নামানি যানি কমপোকং তস্য দেবস্য সেবা”।।
( গীতা – মাহাত্ম্য ৭ )

ভাবার্থঃ ”বৰ্তমান জগতে মানুষ আকুলভাবে আকাঙক্ষা করছে,
একটি শাস্ত্রের , একক ভগবানের , একটি ধর্মের এবং একটি বৃত্তির”।

#ভেঙ্গে ভেঙ্গে ভাবার্থঃ দেখুন,

#একং শাস্ত্ৰং দেবকীপুত্ৰ গীতম্‌” — সারা পৃথিবীর মানুষের জন্য সেই একক শাস্ত্ৰ হোক শ্রীমদ্‌ভগবদগীতা ।

#একো দেবো দেবীপুত্ৰ এক” — সমগ্ৰ বিশ্বচরাচরের একক ভগবান হোন ভগবান শ্ৰীকৃষ্ণ ।

#একো মন্ত্ৰস্তস্য নামানি” — একক মন্ত্ৰ , একক প্ৰাৰ্থনা , একক স্তোত্ৰ হোক তার নাম কীৰ্তন,

”হরে কৃষ্ণ হরে কৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে
হরে রাম হরে রাম রাম রাম হরে হরে”।।

#এবং কমপোকং তস্য দেবস্য সেবা” – সমস্ত মানুষের একটিই বৃত্তি বা কর্ম হোক, পরম পুরুষোত্তম ভগবান শ্ৰীকৃষ্ণের সেবা করা।। হরেকৃষ্ণ।।

Leave A Reply

Your email address will not be published.