দর্শকদের দাবিতে ফের দূরদর্শনে আসছে রামানন্দ সাগরের রামায়ণ

ফের পর্দায় ফিরছে রামানন্দ সাগরের রামায়ন। ফাইল চিত্র। একটা সময় রবিবার সকালে গোটা দেশের রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে যেত। সেই সময় চায়ের দোকানে আড্ডা দেওয়ার লোকও পাওয়া যেত না। গোটা দেশ তখন দূরদর্শনে রাম-রাবণের যুদ্ধে মশগুল ছিলেন। রামানন্দ সাগরের সেই রামায়ণ ফের সম্প্রচার করবে দূরদর্শন। ১৯৮৭-৮৮ সালে সম্প্রচারিত হয়েছিল রামায়ণ। তখন পাঁচ থেকে ৯৫ বছরের সবাই রামানন্দ সাগরের রামায়ণ দেখতে রবিবার সকালে টিভির সামনে বসে পড়তেন। সেই নস্টালজিয়া ফের ফিরে আসছে। এই শনিবার থেকেই ফের পুনঃসম্প্রচার হবে পুরনো সেই রামায়ণের। আজ শুক্রবার টুইট করে এই ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গোটা দেশ ২১ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তারপরই রামায়ণ, মহাভারত ফের দেখানোর দাবিও উঠতে থাকে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। দেশের মানুষ দাবি করেন লকডাউনের এই সময়ে ফের রামানন্দ সাগরের রামায়ণ ও বি আর চোপড়ার মহাভারত ফিরিয়ে আনা হোক। ১৯৮৮ সালে রামায়ণের সম্প্রচার শেষ হওয়ার পর রবিবার সকালেই শুরু হয় মহাভারত। তখন দূরদর্শনই ছিল দেশে একমাত্র চ্যানেল, আর বেশির ভাগ ঘরে টিভি না থাকায় গোটা পরিবার, পাড়া-প্রতিবেশিরা মিলে এক জায়গায় বসে রামায়ণ, মহাভারত দেখেছেন দেশবাসী। পরে আরও কয়েকটি সংস্থা রামায়ণ বা মহাভারত তৈরি করলেও পুরনোগুলির কথা আজও ভোলেননি ‘দূরদর্শনের দর্শকরা’। এমনকি তাঁদের কাছে ৩৩ বছর আগের সেই রাম (অরুণ গোভিল) সীতা (দীপিকা চিখালি) লক্ষ্মণ (সুনীল লাহিড়ি)-র বয়স বাড়েনি। তাঁরা যেন সেখানেই থেমে রয়েছেন। মানুষের দাবি মেনে তাই ফের রামানন্দ সাগরের রামায়ণ ফিরিয়ে আনার কথা ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী। আজ শুক্রবার সকালে তিনি টুইটারে জানান, ‘‘আগামিকাল শনিবার ডিডি ন্যাশনালে ফের শুরু হচ্ছে রামায়ণের সম্প্রচার। সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত একটি এপিসোড ও রাত ন’টা থেকে ১০ পর্যন্ত পরের এপিসোডটি সম্প্রচার হবে।’’ প্রকাশ জাভড়েকরের ঘোষণার পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় রামায়ণ, মহাভারত ট্রেন্ডিং করেতও শুরু করে। সম্প্রতি একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের এক অনুষ্ঠানে আসেন রামানন্দ সাগরের রামায়ণের চরিত্রাভিনেতারা। রামায়ণে অভিনয় করার সময় বা তার পর তাঁদের জীবনে কেমন পরিবর্তন আসে সে কথা তুলে ধরেন। পর্দার বাইরেও দেশের মানুষ তাঁদের যেন রাম-লক্ষ্মণ-সীতার রূপেই দেখতেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.